বিয়ানীবাজারে দু’গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত, গুরুতর ৬

0

বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম, ১২ এপ্রিল ২০১৮,

বিয়ানীবাজার উপজেলার গাছতলায় চারখাই এলাকার সাথে আলীনগর ইউনিয়নের রামধা এলাকাবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা ধাওলা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ৬জনকে সিলেট ওসমানি হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে চারখাই পুলিশ ফাড়ির পুলিশ সদস্য ও বিয়ানীবাজার থেকে ওসিম শাহজালাল মুন্সীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। বর্তমানে দুই এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কে প্রায় ৪ ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যান জটের। সাধারণ যাত্রিরা কোন উপায়ন্তর না পেয়ে সংঘর্ষস্থল জুঁকি নিয়ে পায়ে হেঁটে পাড়ি দেন।

স্থানীয়রা জানান, সিলেট-বিয়ানীবাজার সড়কের আঙ্গুরা মোহাম্মদ পুর সড়কের সম্মুখে অটোরিক্স স্টেন্ডের আধিপত্য নিয়ে চারখাইয়ের আহমদ মিয়া ও আলীনগর ইউনিয়নের রামধা এলাকার হেলাল আহমদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। দুইজনের কাছে স্টেন্ডের বৈধ কাগজ রয়েছে এ দাবি নিয়ে হেলালের উপর আহমদ মিয়ার লোকজন ছড়াও হন। এ সময় হেলাল আহমদসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে রামধা এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। দেশীয় অস্ত্র নিয়ে গাছতলায় ছুটে আসেন রামধার লোকজন। এ সময় চারখাই এলাকার লোকজনকে ধাওয়া করেন। খবর পেয়ে চারখাইয়ের লোকজন ঘটনাস্থলে জড়ো হলে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। মধ্যে এ সময় চারখাই পুলিশ ফাড়ির পুলিশ সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি। বৃষ্টির মতো ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছালে স্থানীয় মুরব্বিদের সহযোগিতায় পরিস্থিতি শান্ত করেন।

সংঘর্ষ ঘটনায় উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জুনেদ আহমদ, খালেদ আহমদ, সেলিম আহমদ, ময়নুল ইসলাম, নাসির উদ্দিনকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আহতরা জানান, আরো অনেককে চারখাইয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আহতদের মধ্যে চারখাইয়ের ২ ও রামধা এলাকার ৪ জনকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তাদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। গুরুতর এ ৬ আহতদের শরীরে ধারালো অস্ত্রের কোপ রয়েছে।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি শাহজালাল মুন্সী বলেন, সিএনজি স্টেন্ডের আধিপত্য নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ নিয়ে দুই গ্রামের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছেন। বর্তমানে পরিস্থিত শান্ত রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় কোন পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেনি।

Ads

Share.

Leave a Reply