সিলেট নগরীতে ছিনতাইয়ের নতুন কৌশল

0

বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম, ০৮ জুন ২০১৮,

টার্গেট ‘ফিক্সড’ করে অনুসরণ করে ৫-৬ জনের একটি টিম। ছদ্মবেশে নানা কৌশলে মুহূর্তেই ছিনিয়ে নিচ্ছে সবকিছু। নানা অভিনব কৌশল ছিনতাইকারীদের। জনশুন্য কিংবা নির্জন স্থানে নয়, নতুন কৌশলে ব্যাস্ত মার্কেটেই ‘টার্গেট’ ব্যাক্তির সাথে বিভিন্ন কায়দায় বাকবিতন্ডা কিংবা ফাঁদে ফেলে হাতিয়ে নিচ্ছে মূল্যবান জিনিসপত্র, টাকা এবং মোবাইল ফোন। চেক শার্ট কিংবা জিন্স প্যান্ট পরনে দেখে আপনি কখনো ভাবতে পারবেন না এই ‘স্মার্ট’ ছেলেগুলোই ছিনতাইয়ে জড়িত।

অস্ত্র ঠেকিয়ে, ঝাপটা মেরে, মলম/অজ্ঞান পার্টি, খাবারে ঔষধ মিশিয়ে, ছদ্মবেশে যাত্রী সেজে সিএনজিতে ছিনতাইয়ের ঘটনার পাশাপাশি ছিনতাইকারীরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ফাঁকি দিতে নিত্য নতুন কৌশল আবিস্কার করছে।রাস্তাঘাটে ছিনতাইয়ের জন্য কৌশলে নিরপরাধীকে অপরাধী বানিয়ে দিচ্ছে।গায়ে ধাক্কা লাগিয়ে , পায়ে পা মাড়ানো, হোঁচট খাওয়ার ভান করে কাছে আসছে। অহেতুক ঝগড়া বাধাচ্ছে, বাক বিতন্ডায় জড়িয়ে মূহুর্তেই কেড়ে নিচ্ছে সবকিছু। সবার সামনেই, ব্যস্ততম রাস্তায়, মার্কেটের সামনে কিংবা শত শত পথচারীদের বোকা বানিয়ে। তাদের সেই কৌশল বা ফাঁদে সর্বহারা হচ্ছেন অনেকেই।

সম্প্রতি সিলেট নগরীতে এমন অভিনব কৌশলে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গত মঙ্গলবার সিলেট নগরীর প্রাণকেন্দ্র জিন্দাবাজারের একটি অভিজাত মার্কেটের সামনে মধ্যরাতে এমন একটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। ৪-৫ জন তরুণ বয়সী যুবক অন্য এক কম বয়সী যুবককে মার্কেটের সামনেই ঘিরে ধরে। তাকে বলে, ‘তুই আমাদের ছোট ভাইকে মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়েছিস কেনো? তুই কি জানস না সে কোন গ্রুপ করে?’ কমবয়সী যুবক এসব কিছু জানেনা বললেও তারা শুনতে রাজী না হয়ে বলে, ‘দেখি তোর মোবাইল ফোন দেখি।’ এরইমধ্যে গ্রুপের অন্যরা ঐ কমবয়সী যুবকের পকেট হাতিয়ে মানিব্যাগ নিয়েও সটকে পড়ে। ঝটলা দেখে দুই একজন পথচারী থামলেও নিজেদের বন্ধুদের মধ্যে সামান্য সমস্যা বলে ছিনতাইকারী গ্রুপ তাদেরকে চলে যেতে বলে। ছিনতাইয়ের শিকার হওয়া ঐ যুবক তখনো বুঝতেই পারেনি তাকে ছিনতাই করা হচ্ছে। মুহুর্তেই মোবাইল ফোন চেক করার নামে সটকে পড়ে তারা।হঠাৎ তাকে সামনে আসতে বলে কৌশলে ছিনতাইকারীরা সটকে পড়ে।

এছাড়াও আরো বিভিন্ন কৌশলে সিলেটে সক্রিয় ছিনতাইকারীরা। আগে থেকে টার্গেট করে অনুসরণ করে ভীড়ের মধ্যে ‘পায়ে পা মাড়ানো’, ‘হাত লাগা’ বা অন্য যেকোন অজুহাতে বিতন্ডায় জড়ান ছিনতাই গ্রুপের এক সদস্য। ছদ্মবেশে থাকা অন্য সদস্যরা বিতন্ডার সময়ই ভীড়ের মধ্যে টার্গেটকৃত ব্যাক্তির পকেট সাফাই করে সটকে পড়েন। সম্প্রতি এমন আরেকটি ঘটনা ঘটেছে নগরীর বন্দরবাজারে।

ঈদ বাজারকে কেন্দ্র করে বেপরোয়া হয়ে উঠছে এসব ছিনতাইকারীরা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এরকম পরিস্থিতির শিকার হলে কৌশলে তাদের ছিনতাইকারীদের নিয়ন্ত্রনমুক্ত হয়ে জোরে জোরে চিৎকার করে লোকজন জড়ো করতে। ছিনতাইয়ের শিকার হলে অবশ্যই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাহায্য নিতে পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

এদিকে নগরীতে ছিনতাই নিয়ন্ত্রণে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশের টিম। ছিনতাইকারীদের ধরতে সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্য ছাড়াও মার্কেটে মার্কেটে ‘ছদ্মবেশে’ পুলিশ সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছেন বলে সিলেটভিউকে জানিয়েছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মোহাম্মদ আবদুল ওয়াহাব। ছিনতায়ের যেকোন ঘটনা এবং ছিনতাইকারীদের সম্পর্কে তথ্য জানা থাকলে তা পুলিশকে অবহিত করার জন্য তিনি অনুরোধ জানান।

Share.

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.