রাজন হত্যা : ‘রায়ের পর তোকে দেখে নেবো’

0

রিপোর্ট : বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম ডেস্ক, ০৮ নভেম্বর ২০১৫,

‘আমরা বলেছিলাম, কাের্টে না যাওয়ার জন্য। আপোস করার কথা বলেছিলাম। তুই শুনিসনি। ৮ তারিখ রায়। রায়ের পর তোকে দেখে নেবো, কী করে কোর্টে যাস।’

প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে এমন হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন খুন হওয়া শিশু সামিউল আলম রাজনের বাবা শেখ আজিজুর রহমান। রবিবার (৮ নভেম্বর) রাজন হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হবে।

রায় ঘোষণার আগে শনিবার এক প্রতিক্রিয়ায় এমন অভিযোগ করেন আজিজুর রহমান। এসময় তাঁর বাড়িতে পুলিশি নিরাপত্তা কমে গেছে বলেও জানান তিনি।

তবে জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন বলেন, রাজনের বাবাকে হুমকি প্রদানের কোনো তথ্য আমার জানা নেই। তাছাড়া তাকে পর্যাপ্ত পুলিশি নিরাপত্তা প্রদান করা হচ্ছে।

এরআগে রাজনের বাবা তাঁর সাক্ষীদের হুমকি প্রদানের অভিযোগ করেছিলেন।

শনিবার সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকমকে শেখ আজিজুর রহমান বলেন, আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। কামরুলদের বাড়ির সামনে দিয়ে প্রতিদিন আমাকে বাড়ি যেতে হয়। রাস্তাঘাটে কামরুলের ভাই, গিয়াস মেম্বার, খালেদ মেম্বার আমাকে দেখলেই গালাগালি করে। তারা রায়ের পর দেখে নেওয়ারও হমকি দিচ্ছে।

আজিজুর রহমান বলেন, রাজনকে হত্যার পরপরই তারা আমাকে আপোসের প্রস্তাব দিয়েছিলো। আমাকে ১৫ লাখ টাকা দিতে চেয়েছিলো। কিন্তু আমি তাদের আপোস প্রস্তাবে রাজী হই নি। আমি ছেলে হত্যার বিচার চেয়েছি। আপোস প্রস্তাবে রাজী না হয়ে আদালতে বিচার প্রার্থী হওয়ায় কারণে তারা আমার উপর ক্ষুব্দ।

রাজনের বাবা বলেন, এখন আমি স্বাধীনভাবে চলাচল করতে পারি না। বাড়ি থেকে বের হতে হলে ৩/৪ জনকে সাথে নিয়ে বের হতে হয়। তবুও সবসময় আতঙ্কের মধ্যে থাকি।

গত ৮ জুলাই সিলেটের কুমারগাওয়ে শিশু রাজনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যাকান্ডের ৪ মাসের মধ্যে রবিবার এ মামলার রায় ঘোষিত হতে যাচ্ছে।

ছেলে হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি করেন বাবা শেখ আজিজ। তিনি বলেন, আজ (শনিবার) সকালে ঘুম থেকে ওঠেই ছেলের কবর জিয়ারত করেছি। এরপর মসজিদে গিয়ে ছেলের জন্য দোয়া করেছি। ছেলের মা লুবনা বেগমও সারাদিন ঘরে বসে কোরআন তেলাওয়াত করেছেন ও ছেলের জন্য কান্নাকাটি করেছেন বলে জানান আজিজুর রহমান।

Share.

Leave a Reply