Beanibazar View24
Beanibazar View24 is an Online News Portal. It brings you the latest news around the world 24 hours a day and It focuses most Beanibazar.

করোনায় আমেরিকা প্রবাসী চিকিৎসকের মৃত্যু


প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশি-আমেরিকান বংশোদ্ভূত চিকিৎসক মো. ইফতেখার নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস নর্থ হাসপাতালে মারা গেছেন। তিনি দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে নিউইয়র্ক স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত ছিলেন। এনবিসিএস মেডিকেল সার্ভিসের উপদেষ্টা ডা. নাফিজ এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ডা. ইফতেখারের দেশের বাড়ি মানিকগঞ্জে।

এ ছাড়া গতকাল সোমবার করোনায় নিউইয়র্কে বাকের আজাদ, আব্দুর রাজ্জাক, মো. আফতাব উদ্দিন, আবুল ফাররাহ ও মিশিগান অঙ্গরাজ্যে ছফর উদ্দিনের মা (নাম জানা যায়নি) মারা গেছেন বলে পাওয়া গেছে। এ নিয়ে আমরিকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮২ জন প্রবাসী বাংলাদেশি। বর্তমান বাস্তবতায় এ সংখ্যা কম–বেশি হতে পারে।

শুধু মৃত্যু নয় আক্রান্তের দিক দিয়েও যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্কের অবস্থান সবার ওপরে। কোভিড-১৯ রোগী হিসেবে শনাক্ত মানুষের সংখ্যা এখন ১ লাখ ৩১ হাজার ৯১৬ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৭৫৮ জনের।

করোনা আক্রান্ত হয়েছেন আরেক বাংলাদেশি-আমেরিকান বংশোদ্ভূত নার্স। তিনি নিউইয়র্কের আইনস্টাইন ও মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের কর্মরত। তাঁর বন্ধু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত এক রোগীকে আইসিউতে ভেন্টিলেটর লাগানোর সময় ওই রোগীর মাধ্যমে তিনি সংক্রমিত হন। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন আছেন।

জীবন বাজি রেখে রোগীদের সেবা দিয়ে যাচ্ছেন আমেরিকায় বাংলাদেশি চিকিৎসাকর্মীরা। এ সম্পর্কে ডা. নাফিজ বলেন, ‘যেদিন থেকে সার্টিফিকেট নিয়ে শপথ করেছি, সেদিন থেকেই মানবসেবাই আমাদের ব্রত। যেকোনো পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে দাঁড়ানোকে আমাদের কর্তব্য বলে মনে করি। পেছনের দিকে তাকানোর সময় নেই।’

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে করোনা আতঙ্ক সম্পর্কে ডা. নাফিজ আরও বলেন, ‘আমি দীর্ঘ ২০ বছর ধরে এই পেশায় আছি। এমন ভয়ংকর পরিস্থিতের মধ্যে আমাদের যেতে হবে সেটা কখনো ভাবিনি।’ তিনি আরও বলেন, আমি ইমারজেন্সিতে অনেক ধরনের রোগী দেখেছি তবে এমন করুণ অবস্থা কখনো দেখিনি। তবে আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে আশার আলো দেখা যাবে তিনি আশাবাদী।

লং আইল্যান্ডের গ্লেনকোভ হাসপাতালের কর্মরত বাংলাদেশি-আমেরিকান বংশোদ্ভূত আরেক চিকিৎসক বলেন, নিউইয়র্কের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে লং আইল্যান্ড। দিন দিন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। তিনি আরও বলেন, একজন চিকিৎসক হিসেবে রোগীর জীবন বাঁচাতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। যদিও কিছুটা করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমছে তবে আগামী দুই সপ্তাহ আমাদের সকলকে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে সাবধান করে দিলেন এ চিকিৎসক।

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে সর্বশেষ ৩ লাখ ৬৮ হাজারের বেশি লোক আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ১০ হাজার ৯৯৪ জন। সুস্থ্য হয়ে উঠেছে প্রায় ২০ হাজার রোগী।

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.