বিয়ানীবাজার

বিয়ানীবাজারে স্কুল ছাত্রীকে ধ’র্ষণ, ওসিসিতে ভর্তি






বিয়ানীবাজারের কুড়ারবাজার ইউনিয়নের আঙ্গুরা গ্রামে এগারো বছরের এক শিশু ধ’র্ষিত হয়েছে। গত পরশু (বুধবার) দিনের বিকেলে শিশুটিকে ধ’র্ষণ করা হয়। বর্তমানে সে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের ওসিসিতে রয়েছে। শিশুটি পরিবারের সাথে বিয়ানীবাজার উপজেলার কুড়ারবাজার ইউনিয়নের আঙ্গুরা এলাকায় বসবাস করতো।



সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি থেকে বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) সাথে যোগাযোগ করে বিষয়টি জানান ওসিসি’র দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তা। বিয়ানীবাজার থানার ওসি ধ’র্ষিতা শিশুর পিতার সাথে কথা বলে থানায় অভিযোগ দেয়ার জন্য অনুরোধ করে।



কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালীদের ভয়ে শিশুটির পিতা গত তিন দিনেও থানায় কোন অ’ভিযোগ করেননি। পুলিশ এখন পর্যন্ত শিশু ধ’র্ষকের পরিচয় পায়নি। অভিযোগ না পেলেও পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত শুরু করেছে। ধ’র্ষিতা শিশুটি এখনো ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।



এদিকে ধ’র্ষণ ঘটনা ধামাচাপা দিতে এবং ধ’র্ষককে রক্ষা করতে এলাকার একটি মহল তোড়জোর শুরু করেছে। আজ শুক্রবার এলাকায় এ নিয়ে নি’ষ্পত্তি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ধ’র্ষিতার পিতাকে কৌশলে মুখ ব’ন্ধ করে রাখার একটি প্রস্তাব দেয়ার বিষয়টি স্থানীয়রা জানিয়েছেন। অন্য একটি সূত্র জানিয়েছে- ভয়ে ধ’র্ষিতা শিশুর পিতা মুখ খুলছেন না।



এমনকি থানায় পর্যন্ত অ’ভিযোগ করেননি। এ ঘটনাটি ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য অবহিত রয়েছেন বলে স্থানীয়রা জানান। তবে ঘটনার বিষয়টি নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের এর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে রিং বাজলেও তিনি কল রিসিভ করেননি। ফলে ধ’র্ষণ ঘটনার সালিশ নিষ্পত্তিতে তিনি জড়িত রয়েছেন কি না তা জানা সম্ভব হয়নি।



বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনী শংকর কর বলেন, ঘটনার তদন্ত জন্য এসআই কামরুলকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। নি’র্যাতিত শিশুটি সিলেট ওসমানি হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি রয়েছে। শিশুটির পিতার সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলে থানায় অভিযোগ দেয়ার জন্য বলেছিলাম কিন্তু আজ (শুক্রবার) পর্যন্ত কোন অ’ভিযোগ আসেনি। অ’ভিযোগ শিশুটির পিতার অনিহা রয়েছে। তিনি বলেন, শিশু ধ’র্ষণ ঘটনাটির বি’রুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে আঙ্গারজুর এলাকায় পুলিশ পাঠানো হয়েছে।














Related Articles

Close