বিশেষ প্রতিবেদনমতামতস্বাস্থ্যকথা

দিনে ৯ ঘণ্টার বেশি বসে কাজ করলে অসময়ে মৃ’ত্যুর হাতছানি!







শারীরিক কসরতের পরিমাণের উপর যেমন শরীরের ফিটনেস নির্ভর করে, তেমনই আপনি কতক্ষণ বসে রয়েছেন সেটি আপনার মৃ’ত্যু ডেকে আনে। হ্যাঁ, সম্প্রতি একটি গবেষণায় এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে।



ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে প্রকাশিত যে, দিনে সাড়ে ৯ ঘণ্টা বা তার বেশি বসে থাকলে মৃ’ত্যুর ঝুঁকি বাড়ে। তবে ঘুমের সময়কে এর মধ্যে ধরা হয়নি। দ্য ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের মতে, ১৮ থেকে ৬৪ বছরের ব্যক্তিকে সপ্তাহে ১৫০ মিনিট হাল্কা শারীরিক কসরত ও ৭৫ মিনিট বেশ খাটনি করতে হবে।



সারা বিশ্বে প্রতি বছর যত মানুষের মৃ’ত্যু হয়, তার ৪ শতাংশ মৃ’ত্যু হয় দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার কারণে। সংখ্যাটা ৪ লক্ষ ৩৩ হাজার। ৩ ঘণ্টার বেশি টানা বসে থাকলে মৃ’ত্যুকে সাদরে ডেকে আনছেন আপনার জীবনে।

একটানা বসে থাকলে শরীরের নয়টি অঙ্গ ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়- মাথা, হাত, পা, পায়ের পাতা, ঘাড়, পিঠ, ফুসফুস, পাকস্থলী এবং হার্ট। স্পেনের সান জর্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা বলছেন, খুব কম বিরতিতে একভাবে বসে কাজ করলে বা টিভি দেখলে টাইপ টু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেড়ে যায় ৯০ শতাংশ।



১. দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে হৃদরোগজনিত জটিলতা দেখা দেয়। বেশিক্ষণ বসে থাকলে শরীরে যে চর্বি জমা হয় সেগুলো ঝরে যাওয়ার কোন সুযোগ থাকে না। তখন শরীরে ফ্যাটি অ্যাসিডের পরিমাণ বেড়ে জটিলতা তৈরি করে।

২. যারা দীর্ঘ সময় বসে কাজ করেন তাদের বেশিরভাগেরই ঘাড়, কাঁধ, কোমর এবং পিঠে ব্যথায় ভুগতে দেখা যায়।



৩. সারাদিন কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপে বসে কাজ করলে দেহভঙ্গিতে তার প্রভাব পড়ে।

৪. বিশেষজ্ঞরা বলছেন, একটানা বসে কাজ করলে শুধু শারীরিক ক্ষতিই হয় না, মানসিক সমস্যাও দেখা দেয়। যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার গবেষকরা বলছেন, দীর্ঘ সময় বসে কাজ করলে মস্তিষ্কের নির্দিষ্ট অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয় ।

৫. একটানা কাজ করলে শরীরে ওজন বাড়ার প্রবণতা বাড়ে।



৬. নরওয়ের ইউনিভার্সিটি অব সায়ন্স এন্ড টেকনলজির গবেষকরা বলছেন, একটানা বসে কাজ করলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়।

৭. দীর্ঘক্ষণ বসে কাজ করলে পায়ের উপরও চাপ পড়ে। এতে পায়ের শিরাতে রক্ত চলাচলে সমস্যা হয়। মাঝেমধ্যে পা ফুলেও যায়।

৮. একটানা বসে কাজ করলে ঘুমেরও ব্যাঘাত ঘটে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এভাবে সারাদিন বসে যাদের কাজ করতে তাদের অন্তত প্রতি আধ ঘণ্টা পর একবার বিরতি নেয়া উচিত। সেক্ষেত্রে কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি কিংবা দাঁড়াতে পারেন। যাদের ঘাড়, পিঠে ব্যথা হয় তাদের প্রতি আধ ঘণ্টা পর পর তাদের ফ্রি হ্যান্ড ব্যায়াম করা উচিত।














Related Articles

Close