আন্তর্জাতিকবিচিত্র সংবাদ

বন্ধু যাবে কানাডা! ঈর্ষায় জ্বলেপুড়ে এয়ারপোর্টে বো’মাতঙ্ক ছড়াল রুমমেট







‘দোস্ত ফেল হোতা হ্যয় তো দুখ হোতা হ্যায়। লেকিন দোস্ত ফার্স্ট আ জায়ে তো জাদা দুখ হোতা হ্যয়! ‘থ্রি ইডিয়টসের সেই বিখ্যাত সংলাপ! এতদিন প্রায় আম পাবলিকের মুখ-মুখে ঘুরে বেড়াচ্ছিল। এবার সেইরকমই কাণ্ড কিছুটা সত্যিই হতে চলল!

হায়দরাবাদের সাইবার পু’লিশ সম্প্রতি এক যুবককে গ্রে’ফতার করেছে। কারণ, ফ্লাইটে বো’মা রয়েছে! এমন ভুয়ো দাবি নিয়েই তিনি রাজীব গান্ধী ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে একটি চিঠি লিখেছিলেন। বন্ধু কানাডা যাচ্ছেন। মনেপ্রাণে হিংসায় জ্বলছেন আর এক বন্ধু। আর সেই থেকেই বো’মাতঙ্ক ছড়ানোর কৌশল জাগে আর এক বন্ধুর মনে।



এয়ারপোর্টের কাস্টোমার সাপোর্ট ডিপার্টমেন্টের কাছে ঠিক এই মর্মেই একটি ইমেল আসে। সেখানে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি লিখেছেন, আমি চাই এয়ারপোর্টে ঠিক আগামীকাল অর্থাৎ বুধবার একটা বো’মা ফাটুক! তারপরই তন্নতন্ন করে এয়ারপোর্ট চত্বর এবং ফ্লাইটের ভিতরেও তল্লাশি চালানো হয়। কিন্তু সেখানে কিছুই খুঁজে পায়নি পু’লিশ।



আর তারপরই পু’লিশের তরফে জোরকদমে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়। সেখানেই পু’লিশ জানতে পারে যে, বন্ধু কানাডা যাচ্ছে বলে ঈর্ষান্বিত আর এক বন্ধু এমনতর কাণ্ড ঘটিয়ে বসেছে।



ছোট বেলার বন্ধু কী ভাবে কানাডার পাসপোর্ট পেয়ে গেল, কূলকিনারা করতে পারছিল না আর এক বন্ধু। পু’লিশ সূত্রে জানা গিয়েছে কালপ্রিটের নাম কাতরাজু শশীকান্ত। অন্ধ্রপ্রদেশের ওয়ারাঙ্গলে তার বাড়ি। হায়দরাবাদের একটি বয়েজ হস্টেলে সে থাকে। বন্ধু সাইরাম কালেরুও সেখানেই থাকে। সেই সাইরামই পেয়ে গিয়েছে কানাডার ভিসা। তাঁর কানাডা যাত্রা আ’টকাতেই এমনতর ফ’ন্দি আঁটে সে।














Related Articles

Close