অপরাধ চিত্র

মুসলমানদের সঙ্গে কাজ করলে আমেরিকা শক্তিশালী হবে : মার্কিন সিনেটর

যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যের ডেমোক্র্যাট দলীয় স্টেট সিনেটর ম্যাট লেজার বলেছেন, ‘আমেরিকা সৃষ্টির আগ থেকেই এ দেশে মুসলমানরা আসতে শুরু করেছেন। তাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে মুসলমানদের সঙ্গে কাজ করতে পারলে আমেরিকাকে আরও উন্নত ও শক্তিশালী করে গড়ে তোলা সম্ভব হবে।’

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) মিডলটাউন শহরে নবনির্মিত মসজিদ ভবনের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মিডলটাউন শহরের ব্রডস্ট্রিটে নির্মিত ওমর ইসলামিক সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা ও মসজিদের ইমাম আহমেদ বেদির সভাপতিত্বে এবং ক্রোমওয়েলের প্লানিং ও জোনিং কমিশনের নির্বাচিত বাংলাদেশি সদস্য মো. নাজমুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন সিনেটর ম্যাট লেজার।

তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে সর্বপ্রথম মুসলমানরা আসতে শুরু করেছেন ১৭৩০ সাল থেকে। তখনও আমেরিকা আবিষ্কার হয়নি। এ দেশের গোড়াপত্তন থেকেই মুসলমানরা বাস করছেন। মুসলমানদের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে পারলে আমেরিকাকে আরও উন্নত ও শক্তিশালী করে গড়ে তোলা সম্ভব।’

ওমর ইসলামিক সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা ইমাম আহমেদ বেদিরের আপ্রাণ প্রচেষ্টায় এ মসজিদের উদ্বোধন করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছেন মিডলটাউনের মেয়র বেন ফ্লোরসেইন। তিনি বলেন, ‘মিডলটাউনে দিন দিন মুসলমানদের সংখ্যা বেড়েই চলছে। সেই মোতাবেক তাদের ধর্মীয় উপাসনালয় গড়ে উঠবে এটাই স্বাভাবিক। আমি মিডলটাউনের পক্ষ থেকে তাদের এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই’।

ইমাম আহমেদ বেদির বলেন, ‘এ মসজিদে সর্বদেশীয় ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের নিয়মিত নামাজ আদায়ের পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের শিশু কিশোরদের ধর্মশিক্ষা প্রদান করা হবে। পার্শ্ববর্তী শহর ক্রোমওয়েল আমরা এর আগে এ মসজিদটি নির্মাণের প্রচেষ্টা চালিয়েছিলাম। নানা জটিলতার ফলে তা সম্ভব হয়ে উঠেনি।’

এ সময় তিনি মুসলিম ছুটির দিনগুলোতে কানেকটিকাটের স্কুলগুলোতে সাধারণ ছুটি ঘোষণ করার দাবি জানান। সিনেটর বিষয়টি কর্তৃপক্ষের কাছে তুলে ধরবেন বলে আশ্বাস দেন।

ক্রোমওয়েলের প্লানিং ও জোনিং কমিশনের নির্বাচিত বাংলাদেশি সদস্য মো. নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘মিডলটাউনে নির্মিত এ মসজিদ ভবনটি নির্মাণের শুরু থেকেই তাদের সঙ্গে জড়িত থেকে সহায়তা দিয়েছি। বিশেষ করে শহর কর্তৃপক্ষের অনুমতিসহ যাবতীয় কর্মকাণ্ডে সাহায্য করেছি। এ মসজিদটি পার্শ্ববর্তী শহর ক্রোমওয়েলে নির্মাণ করার কথা ছিল কিন্তু তা সম্ভব হয়ে উঠেনি। কারণ প্লানিং ও জোনিং কমিশন ভোটে তা পাস হয়নি। সেখানে রাজনৈতিক প্রভাব দেখা দিয়েছিল। ক্রোমওয়েল শহরে অনুমতি না পাওয়ায় ওমর ইসলামিক সেন্টারের প্রতিষ্ঠাতা ও মসজিদের ইমাম আহমেদ বেদি মিডলটাউনে এ মসজিদটি নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেন। আমি একজন বাংলাদেশি মুসলমান হিসেবে তাকে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করেছি।’

মিডলটাউনে বাংলাদেশিদের দ্বারা পরিচালিত একটি মসজিদ রয়েছে, বর্তমানে এ মসজিদটি নির্মাণের ফলে বাংলাদেশি মসজিদের মুসল্লিদের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘এ মসজিদ নির্মাণের পর বাংলাদেশি মসজিদের ওপর কোনো প্রভাব পড়বে না। তাছাড়া সেখানে মুসল্লিদের স্থান সংকুলান রয়েছে। আর এ মসজিদটির পরিচালনা করছেন মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম কমিউনিটি। তারা বাংলাদেশিদের কোনো কাজেই প্রতিদ্বন্দ্বী নন।’

ক্রোমওয়েল টাউন কাউন্সিলর জেমস ডেমট্রিয়েসসহ অনেকেই উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। এছাড়াও বাংলাদেশি কমিউনিটির আরিফুল ইসলাম নিপুন ও নিপু অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

Related Articles

Close