প্রবাস

লন্ডনে সিলেটি গৃহবধূ হত্যার দায়ে অভিযুক্ত স্বামীকে কারাগারে প্রেরণ







যুক্তরাজ্যের লন্ডনে আসমা বেগম নামের বাংলাদেশি সিলেটি বংশোদ্ভূত গৃহবধূ হত্যার ঘটনায় তার স্বামী মো. জালাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। জন্মসূত্রে জালালও বাংলাদেশি। পূর্ব লন্ডনের বাড়িতে তার স্ত্রী খুন হওয়ার একদিনের মাথায় আটক হয় জালাল। নির্যাতন চালিয়ে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগে মামলা করা হয় তার বিরুদ্ধে। ১৮ জানুয়ারি (শুক্রবার) আদালতে জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশে আসমা-জালাল দম্পতির তিন সন্তানকে রাখা হয়েছে মামার বাড়িতে।



হত্যাকাণ্ডের শিকার আসমার বাড়ি সুনামগঞ্জ সদর উপ‌জেলার আটাঘর গ্রামে। সন্দেহভাজন হত্যাকারী সিলেটের জালাল উদ্দীন ক‌য়েক বছর আগে বিয়ে করে তাকে লন্ডনে নিয়ে যায়। পপলারের সিটি আইসল্যান্ড ওয়ের এক কাউন্সিল ফ্ল্যাটে থাকতেন ওই বাংলাদেশি দম্পতি।

জানা গে‌ছে, দাম্পত্য কলহের এক পর্যায়ে জালাল ভারি কোনও বস্তু দিয়ে আঘাত করলে আসমার মৃত্যু হয়। ঘটনার সময় ফ্লাট‌টি‌তে কেবল আসমা আর জালালই ছিলেন। হাতে পাওয়া আলামতের ভিত্তিতে পুলিশ জানিয়েছে, স্বামী জালালের নির্যাতনেই আসমার মৃত্যু হয়েছে। ভবনের এক বাসিন্দা শুক্রবার এ প্রতিবেদককে জানান, তাদের সঙ্গে সখ্য ছিল আসমার, মাঝে মাঝেই তাদের ফ্ল্যাটে বেড়াতে যেতেন। অবুঝ সন্তানেরা খুঁজে ফিরছে তাদের মাকে।



১১ জানুয়ারি (শুক্রবার) আসমা হত্যার একদিনের মাথায় ১২ জানুয়ারি (শনিবার) হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে আটক করা হয় তার স্বামী জালালকে। ফ্ল্যাট থেকে জব্দ করা হয় বেশকিছু আলামত। প্রাপ্ত আলামতের ভিত্তিতে ১৩ জানুয়ারি (রবিবার) তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। আজ শুক্রবার ( ১৮ জানুয়ারী) স্ত্রী হত্যার মামলায় জালালকে লন্ড‌নের ওল্ড বেইলী কো‌র্টে হা‌জির করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আবারও কারাগারে পাঠানো হয় তাকে।



আসমা-জালালের তিন সন্তানের মধ্যে বড় ছে‌লের বয়স দশ বছর। দুই জমজ শিশু কন্যা কেবল স্কুলে ভর্তি হ‌য়ে‌ছে। পুলিশ জানিয়েছে, স্কুল খোলা থাকায় আদালতের নির্দেশে আপাতত তিন সন্তানকে তাদের মামার জিম্মায় রাখা হয়েছে।











Related Articles

Close