সারাদেশ

চিকিৎসকের বিচারের দাবিতে মৃত শিশুকে নিয়ে থানায় বাবা-মা







চিকিৎসকের বিচারের দাবিতে ছয় মাস বয়সী এক শিশুর মরদেহ নিয়ে বরিশাল কোতয়ালী থানায় হাজির হলেন বাবা-মা। এ সময় শিশু রিয়ানের বাবা-মার বুকফাটা আর্তনাদে থানার পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। তাদের বুকফাটা আর্তনাদে পুলিশ সদস্যারাও আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কোতয়ালী মডেল থানায় এ হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। রিয়ান নগরীর সিঅ্যান্ডবি রোড ইসলামপাড়া সড়ক এলাকার আল আমিন ও শাহনাজ বেগম দম্পতির সন্তান। আল আমিন পেশায় রাজমিস্ত্রি।



রিয়ানের বাবা আল আমিন জানান, রিয়ান কয়েক দিন ধরে ঠান্ডা-কাশি ও জ্বরে ভুগছিল। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তাকে শের-ই বাংলা হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়। শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. মাহমুদ হাসান খান তাকে সালবিটামল ইনহেলার ব্যবহারের পরামর্শ দেন এবং এটি সদর হাসপাতাল রোডের বেস্ট ফার্মেসি থেকে কেনার পরামর্শ দেন। রাত ৮টার দিকে শিশুটির বাবা-মা তাকে নিয়ে ওই ফার্মেসিতে গিয়ে ইনহেলারটি কেনেন। ওই সময় ওষুধের দোকানের সেলসম্যান রাজিব রেসপোর মাধ্যমে ইনহেলারটি রিয়ানকে ব্যবহার করান।



শিশুর মা শাহানাজ বেগম জানান, ইনহেলারটি দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে রিয়ানের মৃত্যু হয়। তার অভিযোগ ভুল চিকিৎসায় শিশুটি মারা গেছে। এরপর শিশুটিকে নিয়ে তার বাবা-মা থানায় যান এবং এ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

ওষুধের দোকানের সেলসম্যান রাজিব জানান, চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ীই শিশুটিকে ইনহেলার দেয়া হয়েছে। তাদের কোনো ত্রুটি ছিল না।

অভিযুক্ত চিকিৎসক ডা. মাহমুদ হাসান খান জানান, ভুল চিকিৎসায় নয়, বরং ব্যবস্থাপত্র মতে চিকিৎসা নিতে দেরি করায় শিশুটির মৃত্যু হতে পারে। আর রেসপোর মাধ্যমে ইনহেলার ব্যবহার তাদের জানা ছিল না। এ কারণে অভিজ্ঞ দেখেই ওই ওষুধের দোকানে যেতে বলা হয়েছিল।



কোতয়ালী মডেল থানার পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান জানান, শিশু রিয়ানের বাবা আল আমিন চিকিৎসক মাহমুদ হাসান, ফার্মেসির মালিক কানাইচন্দ্র মালাকার ও সেলসম্যান রাজিবকে অভিযুক্ত করে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। শিশু রিয়ানের মৃত্যুর জন্য চিকিৎসকের অবহেলা বা ব্যবস্থাপত্রে ভুল ওষুধ লেখা হয়েছিল কি না, তা খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সূত্রঃ জাগোনিউজ২৪.কম














Related Articles

Close