আন্তর্জাতিক

যুদ্ধ হলে মোদি বা আমার কিছুই করার থাকবে না : ইমরান







যুদ্ধের আবহে পরিস্থিতি উত্তপ্ত। পুলওয়ামা জঙ্গি হামলার পর থেকেই উত্তেজনা বিরাজ করছে দুই দেশের সীমান্তে। মঙ্গলবার পাকিস্তানে অধিকৃত বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইক করে পাকিস্তানকে জবাব দেয় ভারতীয় বিমানবাহিনী। পাকিস্তানও সীমান্তে লাগাতার গোলাবর্ষণ করতে থাকে। যদিও তারও জবাব দিয়ে চলেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।



বুধবার পাকিস্তানের বিমান এফ-১৬ ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে প্রবেশ করে। তবে ভারতীয় বিমানবাহিনী তৎপরতায় সেই বিমানটি ধ্বংস হয় বলে জানা যায়। এরপরেই দুই দেশ তাদের বেশির ভাগ বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এরইমধ্যে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে আলোচনার বার্তা আসে বলে জানা যায়।



এএনআই সূত্রে জানা যায়- পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানান, সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ভারত আলোচনায় বসতে চাইলে তারা প্রস্তুত। দুই পক্ষ বসে আলোচনা করাই শ্রেয়। কারণ যুদ্ধ শুরু হলে দুই দেশের কোনও প্রধানমন্ত্রীর হাতেই আর পরস্থিতি নিয়ন্ত্রণের সুযোগ থাকবে না।
ইমরান খান আরও বলেন, যারা যুদ্ধ শুরু করে তারা নিজেরাও জানে না কোথায় গিয়ে থামবে। আর তাই আলোচনার পথকেই সমাধানের পথ হিসেবে মনে করছেন ইমরান খান।



প্রসঙ্গত, বুধবারই ইমরান খান পরমাণু অস্ত্র নিয়ে বৈঠকে বসেন বলে জানা যায়। ন্যাশনাল কমান্ড অথরিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে ইসলামাবাদে। যেখানে পরমাণু অস্ত্র সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা চলে বলে সূত্রের খবর।














Related Articles

Close