আন্তর্জাতিক

কাশ্মীরের পর বাংলাদেশ সীমান্তেও ‘ইলেকট্রিক বেড়া’ দিচ্ছে ভারত







এবার বাংলাদেশ সীমান্তেও ইলেকট্রিক সীমান্ত বেড়া নির্মাণ শুরু করেছে ভারত। মঙ্গলবার আসামে বাংলাদেশ সীমান্তে প্রথমবারের মতো এ ধরনের বেড়া নির্মাণ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।

এর আগে কাশ্মীর সীমান্তেও একই ধরনের বেড়া নির্মাণ করা হয়। মঙ্গলবার আসামে বাংলাদেশ সীমান্তে প্রথমবারের মতো এ ধরনের বেড়া নির্মাণ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।



রাজনাথ সিং বলেন, পর্যায়ক্রমে ভারত-বাংলাদেশ ও কাশ্মীর সীমান্তের সম্পূর্ণ অংশে এ ধরনের বেড়া নির্মাণ করা হবে।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, গত বছরের সেপ্টেম্বরে কাশ্মীরে ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে ৫ কিলোমিটারে এমন বেড়া নির্মাণ করা হয়েছে।

ভারত মনে করছে, এর মধ্য দিয়ে আন্তঃসীমান্ত অপরাধ ও অন্যান্য তৎপরতা কমে আসবে। এই প্রকল্পের নাম দেয়া হয়েছে বর্ডার ইলেক্ট্রনিক্যালি ডোমিনেটেড কুইক রেসপন্স টিম ইন্টারসেপশন টেকনিক। সংক্ষেপে একে বলা হয় বোল্ড-কিট (BOLD-QIT)।



বাংলাদেশ সীমান্তে প্রথমবারের মতো ইলেকট্রিক বেড়া নির্মাণ হচ্ছে আসামের ধুবরি জেলা বরাবর বাংলাদেশ ও ভারতের ৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তে। এর অধীনে পানির নিচ দিয়ে ও মাটির নিচ দিয়ে বসানো হচ্ছে ‘ছোনার সেন্সর’ বা শব্দ বিষয়ক সেন্সর।

এ জন্য ধুবরি জেলার নদীবিধৌত সীমান্তে বসানো হচ্ছে বিস্তৃত রেঞ্জের ইলেক্ট্রনিক গ্যাজেট। কমপ্রিহেনসিভ ইন্টিগ্রেটেড বর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের অধীনে এসব কাজ করা হচ্ছে।



বিএসএফের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা দাবি করেছেন, এর ফলে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ত্রুটিমুক্ত হবে। আর তাতে ভূমি, পানি, পানির নিচে, আকাশপথকে যেকোনো রকম অপতৎপরতা থেকে মুক্ত করতে সক্ষম হবে তাদের বাহিনী।
-হিন্দুস্তান টাইমস, ইন্ডিয়া টুডে।














Related Articles

Close