অপরাধ চিত্রসিলেট

সিলেটে ভন্ড পীরের ফাঁদে প্রবাসীর স্ত্রী, `পীর সাহেব ফুঁ দিলেই টাকা দ্বিগুন হয়ে যাবে’!







নবীগঞ্জে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করে বাড়ি ফেরার পথে ছদ্মবেশী প্রতারক চক্র প্রবাসীর স্ত্রীর ২১ হাজার টাকা কৌশলে হাতিয়ে নিয়ে পালানো সময় আটক করা হয়েছে। পরে গনধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে নবীগঞ্জ শহরের শেরপুর রোডে অবস্থিত এক্সিম ব্যাংক কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে।

আটককৃতরা হচ্ছে- মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার উত্তর বালিগাঁও গ্রামের মৃত মতি মিয়ার পুত্র সালাউদ্দিন (৩৫), দক্ষিণ রাশছিল গ্রামের শরিফ মিয়া (২৫), শ্রীমঙ্গল উপজেলার পূর্বশা গ্রামের মৃত লাল মিয়ার পুত্র জালাল মিয়া (৫৫), শ্রীমঙ্গল উপজেলার রামনগরের সুধির (৩০)।



সূত্র জানায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের গুজাখাইড় গ্রামে সাজেরা বেগমের স্বামী ওমান থেকে নবীগঞ্জ এক্সিম ব্যাংকে টাকা প্রেরণ করেন। স্বামীর প্রেরণকৃত টাকা উত্তোলন করতে সোমবার সকাল ১২ টার দিকে সাজেরা বেগম ব্যাংকে যান।

ব্যাংক থেকে ১৯ হাজার টাকা উত্তোলন করে ব্যাংকের নিচে আসা মাত্র প্রতারক চক্র ও ছিনতাইকারীরা ওই মহিলাকে ভাল মন্দ জিজ্ঞাসা করে পরিচয় দেয় সে একজন বড় ‘পীর’। সে ফুঁ দিলে নাকি যত টাকাই থাকুক তা দ্বিগুন হয়ে যাবে।



তখন মহিলা বলেন, ‘আমার ব্যাগে ২১ হাজার টাকা আছে’।

এ সময় প্রতারক চক্র বলে পীর সাহেব ফুঁ দিলেই ব্যাগের ভিতরে থাকা ২১ হাজার দ্বিগুন হয়ে যাবে। তাদের কথা মতো মহিলা চোঁখ বন্ধ করেন আর ফুঁ দেয় ভন্ড ‘পীর’। মুহুর্তের মাঝে ২১ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে চম্পট দেয় ৫ সদস্যের প্রতারক চক্র।



প্রাইভেট কার ঢাকা (মেট্রো- ভ-০২-১২৯৯) যোগে পালানোর সময় মহিলার চিৎকার শুরু করে। এতে আশপাশের লোকজন ধাওয়া দিয়ে ছিনতাইকারী প্রতারকচক্রসহ কারটি আটক করে। এ সময় এক প্রতারক পালিয়ে গেলেও ৪ প্রতারককে গনধোলাই দেয়া হয়।

পরে খবর পেয়ে থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই শামছুল ইসলাম, এসআই ফখরুজ্জামানসহ একদল পুলিশ আটক ৪ প্রতারককে থানায় নিয়ে যান। তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেটকারটিও জব্দ করা হয়েছে।














Related Articles

Close