আন্তর্জাতিক

২০ হাজারেরও বেশি সেনাকে ট্রেনিং দিয়েছেন এই মহিলা কমব্যাট ট্রেইনার







৪৯ বছর বয়সি সীমা রাও ভারতের প্রথম মহিলা কমব্যাট ট্রেনার। মিলিটারি মার্শাল আর্টসে সপ্তম ডিগ্রি ব্ল্যাক বেল্ট হোল্ডার হওয়ার পাশাপাশি তিনি কমব্যাট শুটিং ইনস্ট্রাক্টর, দমকলকর্মী, স্কুবা ডাইভার এবং এইচ এম আই থেকে মেডেল পাওয়া রক ক্লাইম্বারও বটে।

ডঃ রাওয়ের বাবা ছিলেন একজন স্বাধীনতা সংগ্রামী। ছোটবেলা থেকেই শুনে আসছেন দেশকে ভালবাসার গল্প। তাই হয়তো পরবর্তীকালে ডাক্তারি এবং ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্টে এম বি এ পাশ করার পরও নিশ্চিন্ত চাকরি জীবনের দিকে না গিয়ে বেছে নিয়েছিলেন দেশসেবার কাজ।



জনপ্রিয় মার্শাল আর্টিস্ট ব্রুস লি তৈরি করেছিলেন Jeet Kune Do নামে একটি বিশেষ মার্শাল আর্ট। সারা বিশ্বে এই মার্শাল আর্টের মাত্র ১০জন মহিলা ট্রেনারের মধ্যে একজন ডঃ রাও। তাঁর ঝুলিতে রয়েছে প্রচুর সম্মান ও পুরস্কার। পেয়েছেন তিনটি Army Chief Citations, US President’s Volunteer Service Award এবং World Peace Diplomat Award।



সম্মানিত হয়েছেন ভারতীয় নারীদের জন্য সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান ‘নারী শক্তি পুরস্কার ২০১৯’-এ। ভারতীয় বায়ুসেনার স্কাই ডাইভিং কোর্স করে পেয়েছেন প্যারা উইংস।

‘বিউটি উইথ ব্রেনস’ কথাটি যেন তাঁর জন্যই তৈরি! বিউটি প্যাজেন্ট Mrs India World-এর এই ফাইনালিস্ট লিখেছেন কমব্যাট টেকনিকের উপর বেশ কিছু বই। তাঁর বইগুলি জায়গা করে নিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর লাইব্রেরিগুলিতে। ভারতের প্রথম মিক্সড মার্শাল আর্টের উপর ছবি Hathapayi-র পরিচালকও তিনি। ছবিটিতে অভিনয় করার পাশাপাশি গানও গেয়েছেন ডঃ রাও।

‘ভারতের ওয়ান্ডার ওম্যান’ নিজের ব্যাপারেবলেন, “আমি একজন সাধারণ নাগরিক, যে দেশের জন্য নিজের কর্তব্যটুকুই করছে।”














Related Articles

Close