বিনোদন

লাক্স সুন্দরী এখন বিসিএস ক্যাডার







সম্প্রতি লাক্স তারকা তানজিমা বিসিএস ক্যাডার হিসেবে যোগ দিয়েছেন। সোহানিয়া ৩৭তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হন। ইতোমধ্যে যোগ দিয়েছেন বলেও জানা গেছে।

মৌসুমী হামিদ, মুমতাহীনা চৌধুরী টয়া, চিত্রনায়িকা টুইঙ্কেল অরিন, মডেল রাখিদের সাথে ছিলেন ২০১০ সালের লাক্স সুপারস্টার প্রতিযোগিতায়। চ্যাম্পিয়ন না হলেও পুরস্কার জিতে নেন ক্লোজ আপ মিস বিউটিফুল স্মাইল ক্যাটাগরিতেও।



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করেছেন সোহানিয়া। ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছিলেন এই তরুণী।পড়াশোনার পাশপাশি সৃজনশীল কাজের প্রতিও ছিলেন সমান আগ্রহী। গান ও একক অভিনয়ে পেয়েছেন জাতীয় পুরস্কার। পঞ্চম শ্রেণিতে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পাওয়া সোহানিয়া জানান দিয়েছিলেন পড়াশোনাতে এক সময় ভালো করবেন। যার ফল পাওয়া গেল সম্প্রতি।

সবার দোয়া চেয়ে সোহানিয়া একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ফেসবুকে। তিনি লিখেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ। মহান আল্লাহ পাকের অশেষ মেহেরবানিতে ৩৭তম বিসিএসে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে গেজেটেড হলাম। আজ এই সাফল্যের পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান আমার পরম শ্রদ্ধেয় বাবা ও মায়ের। আমার ভাই যাদের সাপোর্ট, দোয়া ও ভালোবাসা ছাড়া এই অর্জন হয়তো কখনই সম্ভব হতো না। অনেক অনেক ভালোবাসা তোমাদের জন্য।



আর একজনের কথা না বলেই নয়, সে হচ্ছে আমার জীবনসঙ্গী ফুয়াদ, যে আমার এই বিসিএসের স্বপ্নপূরণের পথে সবসময় আমার পাশে থেকেছে। আমাকে সাহস দিয়েছে। আমার স্বামীও সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে গেজেটেড হয়েছে। সবাই আমার ও আমার স্বামীর জন্য দোয়া করবেন, যেন আমরা দেশ ও মানুষের সেবা করতে পারি।’

বিন্দুবাসিনী সরকারি বালিকা বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ-৫ ও এইচএসসিতে কুমুদিনী সরকারি কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ-৫ অর্জন করেন এরপর ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে।



২০১০ সালে লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নেন সোহানিয়া। লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার-২০১০ প্রথমে শীর্ষ-৭ এ জায়গা করে নেন। ভাগ্যক্রমে আর এগোতে না পারলেও পুরস্কার জিতে নেন ক্লোজ আপ মিস বিউটিফুল স্মাইল ক্যাটাগরিতে। পরে কিছু টেলিভিশন বিজ্ঞাপন করেছেন।

অন্যদিকে, একই বছর ৩৭তম বিসিএসে সোহানিয়ার স্বামী মেহেদি ইসলাম ফুয়াদ পুলিশ ক্যাডারে গেজেটপ্রাপ্ত হয়েছেন। গত বছরের ১২ জুন ৩৭তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করে পিএসসি। এতে ১ হাজার ৩১৪ জনকে বিভিন্ন ক্যাডার পদে নিয়োগের সুপারিশ করা হয়। এরপর চলতি বছরের ২০ মার্চ ৩৭তম বিসিএসে ১ হাজার ২২১ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের সুপারিশ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সে তালিকায় ছিলেন সোহানিয়া ও তার স্বামী ফুয়াদ।
সূত্র: কালেরকন্ঠ।














Related Articles

Close