আন্তর্জাতিকবিচিত্র সংবাদ

রেস্টুরেন্টে প্রকাশ্যে তরুণীদের ধর্ষণ করতে ৭ পুরুষকে ডেকে আনলেন নারী







ছোট পোশাক পরিহিত তরুণীদের নিয়ে জনসম্মুখে বিতর্কিত মন্তব্য করে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন মধ্যবয়স্ক এক নারী। শুধু তাই নয়, ওই নারী রীতিমতো ছোট পোশাক পরিহিত মেয়েদের ধর্ষণ করতে পুরুষদের পরামর্শ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে।

এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লির অভিজাত একটি এলাকায়। ভিডিওতে দেখা যায়, এক মধ্যবয়স্ক নারী এক রেস্তোরাঁয় খেতে আসা কয়েকজন তরুণীর ছোট পোশাক নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করছেন। এমনকি পোশাকের দিকে আঙুল তুলে ওই তরুণীদের ধর্ষণ করার পরামর্শ দেন বেশ কয়েকজন পুরুষকে।



পরে তরুণীরা মধ্যবয়স্ক ওই নারীকে চারদিক থেকে ঘিরে ধরেন। তাকে বারবার ক্ষমা চাইতে বলছেন ক্যামেরার সামনে। তা না হলে এই ভিডিও ভাইরাল করে দেয়া হবে বলেও হুমকি দেন তারা। কিন্তু তিনি কিছুতেই ক্ষমা চাইতে রাজি নন।

ফেসবুকে প্রায় ৯ মিনিটের ভিডিওটি শেয়ার করে শিবানী গুপ্তা নামের এক তরুণী লেখেন, ভিডিওতে যে মধ্যবয়স্ক নারীকে দেখতে পাচ্ছেন, তিনি একটি রেস্তোরাঁয় অন্তত সাতজন পুরুষকে ডেকে আনেন। তারপর পরামর্শ দেন, এই তরুণীদের প্রত্যেককে ধর্ষণ করা উচিত। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, যেহেতু আমরা ছোট পোশাক পরেছি, তাই আমাদের ধর্ষণই করা উচিত। এরপরও তিনি একের পর এক অবমাননাকর মন্তব্য আমাদের উদ্দেশ্য করেন।



ওই নারী মিনি স্কার্ট পরা মেয়েদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তোমরা এতো ছোট পোশাক পরে এসেছ যে, তোমাদের লজ্জা হওয়া উচিত। এসময় ঘটনাস্থলে অনেকেই তার এমন মন্তব্যের প্রতিবাদ করেন। কিন্তু তিনি তার বক্তব্যে অনড় থেকে বলেন, তোমাদের ধর্ষণ করা উচিত।’

রেস্তাঁরার পুরুষ কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘ছোট পোশাক পরিহিত এই ধরনের মেয়েরা সামনে পেলেই আপনাদের উচিত তাদের ধর্ষণ করা।



এ ঘটনার পর শিবানী গুপ্তসহ বাকি তরুণীরা ওই নারীকে ক্ষমা চাইতে বলেন। ভিডিওতে শোনা যায়, একজন বলছেন, আপনি ক্ষমা না চাইলে আমি এই ভিডিওটি ভাইরাল করে আপনার জীবন নরক বানিয়ে দেব।

ভিডিওতে তরুণীদের বলতে শোনা যায় যে, মূল ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজও রয়েছে তাদের কাছে। তিনি ক্ষমা না চাইলে তারা পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাবেন। যদিও এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ দায়ের হয়নি বলে জানিয়েছে গুরুগাঁও পুলিশ।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ভিডিওটি দেখেছেন প্রায় ১০ লাখ ৩৭ হাজার ৯০০ জন এবং ফেসবুকে শেয়ার হয়েছে প্রায় ২৪ হাজার।














Related Articles

Close