সিলেট
Trending

সিলেটে বহুরূপী পিংকির প্রতারনা : সর্বস্বান্ত যুবকরা







কথিত বাউল শিল্পী পিংকি (৩০)। বাউল উদাসী পিংকি নামেই তার সর্বত্র পদচারনা। একাধিক ভয়েস স্টুডিওতে গিয়ে বাউল রেকর্ড করে থাকে সে। তার মা জুলেখা বেগম, শিল্পী দুঃখিনী জুলেখা নামে মায়ের পরিচিতি। শিল্পী নামের আড়ালে দেহবানিজ্য ও বিয়ে ব্যবসাই পিংকিদের মূল পেশা।



একটু-আধটু গান রেকর্ড করিয়ে শিল্পী নাম লাগিয়ে যুবকদের আকর্ষন সৃষ্টি অতঃপর বিয়ে। প্রতারনার মাধ্যমে মোহরানা ও সোনা গহনাসহ টাকা আত্মসাত।

পিংকি বাংলাভাষী যুবমহিলা হলেও তার বাড়িঘরের কোন ঠিক-ঠিকানা নেই। একেক সময় একেক নামে নিজেকে কুমারী ও শিল্পী সাজিয়ে বিয়ে করে ধনাঢ্য পরিবারের যুবকদের। পিংকী বর্তমানে বিশ্বনাথের তাজ উদ্দিনের হেফাজতে তার স্ত্রী পরিচয়ে দিনাতিপাত করছে। তবে এর আগে বিয়ের ফাদে ফেলে অসংখ্য ছেলেদের সর্বস্বান্ত করে ছেড়েছে সে।



তার এ বিয়ে বানিজ্য ও প্রতারনার প্রধান সহযোগী তার খালা পরিচয়ের জনৈকা পিয়ারা বেগম। পিয়ারা বেগমই বিয়ে পাগল ছেলেদের ফাদে ফেলতে ভুমিকা রাখেন। গান ও দেহযৌলুস দেখিয়ে পিংকি এ পর্যন্ত কতবার বিয়ের পিড়িতে বসেছে তার কোন ইায়ত্তা নেই। এ পর্যন্ত কয়েকটি বিয়ে প্রতারনার খোঁজ মিলেছে তার।



সিলেটের কানাইঘাটের আব্দুল মান্নান নামের এক ছেলেকে ফাদে ফেলে বিয়ে করে পিংকি। কিছুদিন যেতে না যেতেই মোহনারা ও সোনা গহনাসহ মোটা অংকের টাকা আত্মসাত করে তাকে ছুড়ে ফেলে চলে যায় গোলাপগঞ্জের সুমন আহমদের কোলে। সুমনের টাকাকড়ি ও অর্থসম্পদ নিয়ে আবার চম্পট দেয় পিংকি।

বাগিয়ে নেয় জগন্নাথপুরের জুবায়েরকে। জুবায়েরকে খেয়ে কিছুদিন পর চলে যায় দক্ষিণ সুরমার মুরাদপুরের কবির আহমদের কোলে। কবিরকে খেয়ে জৈন্তাপুরের দেলোয়ারকে ফেলে বিয়ের ফাঁদে। দেলোয়ারকে ছুড়ে ফেলে বর্তমানে সে বিশ্বনাথের তাজ উদ্দিনের সাথে আছে ।



যুবখেকো পিংকি প্রত্যেকবারাই নিজেকে কুমারী ও শিল্পী সাজিয়ে যুবদের প্রতারনার ফাদে ফেলে থাকে বলে অভিযোগে প্রকাশ। বহুরূপী প্রতারক ও যুবখেকো পিংকির বিরুদ্ধে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে ভোক্তভোগীরা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কজর্তৃপক্ষের আশু পদক্ষেপ কামনা করেচেন।
সূত্রঃ সিলেট ক্রাইম ডটকম

















Related Articles

Close