বিয়ানীবাজার

বিয়ানীবাজারে প্রতিপক্ষের হামলায় কলেজ শিক্ষার্থী গুরুতর আহত







বিয়ানীবাজার পৌরশহরে সন্ত্রাসী হামলায় এক কলেজ শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সোমবার (৩ ডিসেম্বর) বিকেলে ৫টার দিকে পৌরশহরের নিদনপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ প্রতিবেদন লিখা পর্যন্ত হোসেনকে সিলেটের একটি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে বলে আহতের বড়ভাই হাসান নিশ্চিত করেছেন।



গুরুতর আহত শিক্ষার্থীর নাম হোসেন উদ্দিন (১৮)। সে পৌরশহরে নিন্দপুর এলাকার ছমির আলীর পুত্র এবং বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। হোসেনের উপর হামলাকারী সুমন আহমদ পৌরশহরের লামা নিদনপুর এলাকার মুহিব উদ্দিনের পুত্র।



আহত হোসেনের বড়ভাই হাসান জানান, গতকাল রবিবার কলেজ থেকে পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি আসছিল হোসেন। পথে পৌরশহরের নিদনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে সুমন আহমদকে একটি বাচ্চার সাথে দুর্ব্যবহার করতে দেখে হোসেন বাচ্চাটাকে রক্ষা করতে এগিয়ে যায়।

এতে সুমন হোসেনের উপর ক্ষিপ্ত হলে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও বাগবিতন্ডার শুরু হয়। এক পর্যায়ে সুমন সড়কের পাশে পড়ে থাকা একটি লাঠি দিয়ে হোসেন মাথায় আঘাত করে। লাঠির আঘাতে হোসেন মাঠিতে লুটিয়ে পড়ে এবং তার মাথা ফেটে রক্ত ঝরতে থাকে।



পরে স্থানীয় এলাকাবাসী ও পথচারীরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা খারাপ অবস্থায় দেখে সিলেট এএমজি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে সেখানে জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দিয়ে তাকে লাইফ সাপোর্টে পাঠা্নো হয়েছে।



এ ঘটনায় পারিবারিকভাবে বিয়ানীবাজার থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছে হাসান। এদিকে, হাসান তার ভাইয়ের সুস্থতার জন্যে সবার কাছে দোয়া কামনা করেছেন।
















Related Articles

Close