বিয়ানীবাজারে ফেসবুকে ছবি আপলোড করাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ নেতা নোমান-কাউন্সিলর এমাদের মধ্যে হাতাহাতি

0

বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম, ১৫ এপ্রিল ২০১৮,

বিয়ানীবাজারের পিএইচজি স্কুল প্রাঙ্গনে ফেসবুকে ছবি আপলোড করাকে নিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা নোমানের সাথে কাউন্সিলর এমানের বাগবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষই আহত ও অপ;স্ত হয়েছেন। আজ রবিবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, শ্রীধরা গ্রামের আহত শিক্ষার্থীর চিকিৎসা বিষয় নিয়ে স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে শ্রীধরা গ্রামের প্রতিনিধি দলের বৈঠক ছিল। এ বৈঠক শুরু হওয়ার আগে প্রতিনিধি দলে থাকা আওয়ামী লীগ নেতা নোমান আহমদ পৌর কাউন্সিলর এমাদ উদ্দিন ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে বাগতিণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে ফেসবুকে নোমানের আপলোড করা এমাদ উদ্দিনসহ উপজেলা ও পৌর জামায়াতের ইসলামি আমিরদের ছবি আপলোড বি না অনুমতিতে কেন করা হলো এমাদ জানতে চাইলে বাগতিণ্ডা হাতাহাতির পর্যায়ে গড়ায়। এতে নোমান ও এমাদ শারিরীকভাবে আহত হন।

ফেসবুক সংক্রান্ত বিষয়টি অস্বীকার করে কাউন্সিলর এমাদ উদ্দিন বলেন, রাস্তার উপর ঘর নির্মাণ করার সময় আমি বাধা দিলে নোমান আহমদ আমার ক্ষিপ্ত ছিলেন। আজ কথা বলার এক ফাঁকে তিনি আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে আক্রমন করে আহত করেছেন।

উপস্থিত লোকজন নোমান আহমদকে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে নোমান আহমদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি। শ্রীধরা গ্রামের কেএইচ সুমন বলেন, কাউন্সিলর এমাদের সাথে ফেসবুকে ছবি আপলোড করা নিয়ে বাগবিতণ্ডার পর হামলার শিকার হন নোমান আহমদ। কাউন্সিলর এমাদ এলাকার কিছু শিবিরের কর্মীদের নিয়ে এ হামলা করেন। এ ঘটনায় থানা অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র আব্দুস শুকুর বলেন, উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার অনুরোধ করেছি। ঘটনাটি সামাজিকভাবে নিষ্পত্তি করার জন্য শ্রীধরা গ্রামের মুরব্বিদের আলাপ হয়েছে। তিনি বলেন, ফেসবুকে ছবি আপলোড করার কোন একটি বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটেছে।

Share.

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.