স্বপ্ন পূরণের যন্ত্রণা

0

বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম, ১৩ জুন ২০১৮,

সেই এক দশক আগে এসেছিলাম এই অট্টালিকার নগরী স্বপ্নের দেশ সিঙ্গাপুরে। তারপর প্রতিবছর দেশে ফিরে যাওয়ার প্রত্যাশায় নিজেকে তৈরী করি। বিশেষ করে ঈদ আসলেই ভেতরটা কেঁপে ওঠে।

প্রিয়জনদের মুখগুলো বারবার মনে পড়ে কিন্তু গতানুগতিক পারিবারিক সমস্যায় আর ফিরে যাওয়া হয়না। আবারও সময়ের কাছে নিজেকে বিকিয়ে দেয়া। আবারও স্বপ্নগুলো বরফ হয়ে হৃদয়ের এক কোণে অযত্নে জমে থাকা। এখন প্রিয়জনরাও বুঝে গেছে একবার পরবাসী হলে আর ফিরে আসা সম্ভব নয়।

প্রতিদিন পৃথিবীকে বিদায় জানিয়ে যখন আটষট্টি মিটার মাটির গভীরে কাজে যাই নিজেকে বড় অসহায় মনে হয়। একাকিত্বের সুযোগে জমে থাকা হাজারো স্মৃতিরা আমাকে জাপটে ধরে। বাড়ির সামনে বয়ে যাওয়া সেই নদীর কলকল জলের শব্দেও আমার মনের ভেতর কেঁপে উঠে।

কি যে যন্ত্রণা, কি যে হাহাকার! চোখের জলে আশ্রয় নেয়া ছাড়া কিছুই করার থাকেনা। অত:পর চোখের জলের কাছে নদীর জলের আত্বসমর্পণ।

একটা সময় ছিলো, যখন বিমানের শব্দ শুনলেই ঘর থেকে দৌড়ে বেড়িয়ে আসতাম। অনেকটা উত্তেজনায় কেটে যেতো। কখনও বা কিছু স্বপ্ন দু’চোখ বেয়ে ঐ নীল আকাশে উড়ে যেতো। স্বপ্নপূরণের দেশে এখনো বিমানের শব্দে উত্তেজিত হয়ে পড়ি শুধু স্বপ্নমাখা ঐ দু’চোখের কোনে কিছু নোনাজল গড়িয়ে পড়ে স্বপ্ন পূরণের যন্ত্রণায়!

-মো. শরীফ উদ্দীন, সিঙ্গাপুর

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.