ব্রিটেনে স্থায়ী হতে ইউরোপীয় নাগরিকদের বিশেষ সুযোগ

0

বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম, ২২ জুন ২০১৮,

২০১৯ সালের ২৯ মার্চ থেকে ইউরোপিয় ইউনিয়নের সাথে বিচ্ছেদ ঘটছে ব্রিটেনের। তারপরও ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পর্যন্ত ব্রিটেনে বসবাসকারী যে সকল ইউরোপীয় নাগরিক ৫ বছর পূর্ণ করবেন তারা মাত্র ৩টি প্রশ্নের সহজ উত্তর দিয়েই ব্রিটেনে স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ পাবেন বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাভিদ। তাছাড়াও যাদের ৫ বছর পূর্ণ হবে না তারাও ভিন্ন ক্যাটাগরিতে ব্রিটেনে থাকার ও কাজের সুযোগ পাবেন। ইউরোপীয় নাগরিকরা স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে আবেদন করে নির্ধারিত ফি দিয়েই ভিসা প্রাপ্তির সুযোগ দিয়েছে হোম অফিস। স্মার্ট ফোনে সেলফি’র মাধ্যমে নিজের ছবি আপলোড করা যাবে বলেও হোম অফিস নিশ্চিত করেছে।

বিবিসি জানিয়েছে ব্রিটেনে স্থায়ী হতে হলে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোর নাগরিকদের কাছে তিনটি সহজ প্রশ্নের উত্তর চাইবে হোম অফিস। স্মাটফোনের মাধ্যমে অনলাইনে এই তিনটি প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন আবেদনকারীরা। বৃহস্পতিবার হাউজ অব লর্ডসের ইমিগ্রেশন বিষয়ক কমিটির কাছে এই তথ্য জানান হোম সেক্রেটারী সাজিদ জাবিদ।

তিনি বলেন, ব্রিটেন বসবাসের জন্য ইইউভুক্ত নাগরিকদের আইডি চেক, ক্রিমিনাল রেকর্ড এবং ব্রিটেনে বসবাস করছে কি না এ বিষয়টি যাচাই করবে হোম অফিস। অধিকাংশ আবেদনের ফলাফল মাত্র দুই সপ্তাহ ও এর চেয়ে কম সময়ের মধ্যে জানানো হয়।

হোম অফিস বলছে- এই প্রক্রিয়ায় প্রত্যেক আবেদনকারীর ব্যক্তিগত ক্রিমিনাল রেকর্ড গুরুত্বসহকারে দেখা হবে। এ ক্ষেত্রে কোন ধরনের ছাড় দেওয়া হবেনা।
নতুন এই স্কিম বাস্তবায়নে সরকারের ব্যয় হবে ১৭০ মিলিয়ন পাউন্ড। আশা করা হচ্ছে এই পদ্ধতিতে আবেদন জমা পড়বে ৩.৫ মিলিয়ন।
আগামী ২০২০ সালের মধ্যে যেসব ইইউ নাগরিক ও তাদের পরিবারের সদস্যদের ইউকেতে বসবাসের ৫ বছর পূর্ন হবে তারা ইউতে স্থায়ীভাবে বসবাস ও কাজের সুযোগ পাবেন।

নতুন এই স্কিম সুইজারল্যান্ড, নরওয়ে, আইসল্যান্ডের নাগরিকদের জন্যও প্রযোজ্য হবে।
হাউজ অব লর্ডে প্রশ্ন উত্তর পর্বে হোম সেক্রেটারী জানান ৩.৩ মিলিয়ন ইউরোপিয় নাগরিক লন্ডনে বসবাস করছেন এবং সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী প্রায় ৯শ হাজার ব্রিটিশ নাগরিক ইউরোপে বসবাস করছেন। তিনি বলেন, আগামী বছর থেকে এ কার্যক্রম শুরু হবে।
এতে আরো জানানো হয় যাদের ঘরে স্মার্ট ফোন বা কম্পিটার নেই তারা বিভিন্ন লাইব্রেরিতে গিয়েও আবেদন করতে পারবেন। যারা তাও করতে পারবেনা তাদেরকে ইমিগ্রেশন অফিসাররা ঘরে গিয়ে প্রয়োজনে সহযোগিতা করবে।

Share.

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.