হারের পর সুইসাইড নোট লিখে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের আত্মহত্যা

0

বিয়ানীবাজার ভিউ২৪ ডটকম, ২৩ জুন ২০১৮,

আর্জেন্টিনার হারের শোক সহ্য করতে পারেননি ভারতীয় এক আর্জেন্টাইন ভ্ক্ত। গতকাল বৃহস্পতিবার আলবি সেলেস্তারা হেরে যাওয়ার পর নিজের বাড়ির পাশে মিনাচিল নামে একটি নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

কেরালার কোতায়াম জেলার বাসিন্দা এই আর্জেন্টাইন ভক্রে নাম দিনু অ্যালেক্স। পরিবারের দাবি, প্রিয় দল হেরে যাওয়ার কারণে বন্ধুদের কাছে লজ্জায় পড়বেন এই ভয়ে আত্নহত্যা করেছেন তিনি। তবে তিনি আত্মহত্যা করার আগে একটি সুইসাইড নোট লিখে গেছেন। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘সব দেখা শেষে গভীরে ডুব দিতে যাচ্ছি আমি।’

দিনু অ্যালেক্স আর্জেন্টিনার অন্ধ ভক্ত বলে জানান তার এক বন্ধু। বলেন, দিনু আর্জেন্টিনা বলতে পাগল ছিল। আর্জেন্টিনার হার সহ্য করতে না পেরে সে এমনটা করেছে।

কোতায়াম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মর্কতা(ওসি) জোসেফ কোতাহিল টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত দিনুর লাশ উদ্ধার করা সম্ভব হয় নি। ডুবুরিরা তার লাশের খোঁজে নদীতে নেমেছেন। লাশ উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গতকাল রাতে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-০ গোলে হেরে যায় মেসির আর্জেন্টিনা। এই হারের কারণে বিশ্বকাপ থেকে অনেকটাই ছিটকে গেছে সাম্পাওলি শিষ্যরা।

যদিও বিশ্বকাপ শুরুটা ভালো করতে পারেনি আর্জেন্টিনা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে দুর্বল আইসল্যান্ডের বিপক্ষে ১-১ গোলের ড্র নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। ওই ম্যাচে পেনাল্টি মিস করে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন লিওনেল মেসি। ফলে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠতে হলে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জয় দরকার ছিল আর্জেন্টিনার। ম্যাচটি নিয়ে ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে ছিলো চরম উত্তেজনা। বিশেষ করে আর্জেন্টাইন সমর্থকদের মাঝে। যদিও মনেরকষ্টে অনেকে খেলা শেষ হওয়ার আগেই টিভির সামনে থেকে চুপচাপ চলে যান। আবার অনেকে নিজের টিভি ভেঙে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ এক ভিন্ন চিত্র!

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে পঞ্চম স্থানে আর্জেন্টিনা। অন্যদিকে ক্রোয়েশিয়া ২০ নম্বরে। এর আগে ৪ বার মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। যার মধ্যে দুইটিতেই জিতেছে আর্জেন্টিনা। ক্রোয়েশিয়া জিতেছে একটিতে। বাকি ম্যাচ ড্র হয়েছিল। বিশ্বকাপে একবারই মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। সেটি ১৯৯৮ সালে—গ্রুপপর্বে। সেই ম্যাচটিতে ১-০ গোলে জয় পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু এবার যেন সেই মধুর প্রতিশোধ নিল ক্রোয়েশিয়া।

Leave A Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.