Beanibazar View24
Beanibazar View24 is an Online News Portal. It brings you the latest news around the world 24 hours a day and It focuses most Beanibazar.

পঞ্চম শ্রেণি পাস নদী ৪ ভাষায় কথা বলতে পারদর্শী!


নারী পা.চার চ.ক্রের অন্যতম হোতা নদী আকতার চারটি ভাষায় কথা বলতে পারেন। ফলে খুব সহজেই তরুণীদের পটিয়ে ফাঁ.দে ফেলতে পারেন তিনি।

সম্প্রতি ভারতে নারী পা.চারের আন্তর্জাতিক চক্রের তথ্য সামনে আসার পর গ্রে.ফতার আসা.মিদের জবানবন্দিতে মা.নবপা.চারের ভ.য়াবহ চিত্র উঠে এসেছে।

নারী পা.চা.র সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা নদী ও টিকটক হৃদয় বাবু ভারতে অ.বস্থানরত সবুজের হয়ে দেশে সমন্বয়কের কাজ করত। নদী আক্তার পঞ্চম শ্রেণি পাস।

বাংলাদেশ ও ভারতের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, এই সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা নদী। মালয়, হিন্দি, আরবিসহ চারটি ভাষায় কথা বলতে পারেন তিনি। তরুণীদের পটিয়ে পা.চারকারী চ.ক্রে.র ফাঁ.দে ফেলতে তার জুড়ি নেই। নারী পা.চার সি.ন্ডিকেটের ‘ট.প ও.য়া.ন্টেড’ এই সদস্যকে এখন খুঁজছেন গোয়েন্দারা।

বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতের পুলিশের তদন্তেও নদীর নাম উঠে এসেছে। পুলিশ বলছে, তাকে গ্রে.ফ.তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আন্তর্জাতিক না.রী পা.চার.চ.ক্রের আরও তথ্য জানা যাবে। বর্তমানে নদী বাংলাদেশে অবস্থান করছেন বলে পুলিশ সূত্র নিশ্চিত করেছে।

ভারতে এক ত.রুণী.কে নি.র্যা.ত.নের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর নারী পা.চা.রের ঘটনায় পাঁচটি মামলা হয়েছে।

এর মধ্যে প্রথম তিনটি মামলায় বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রে.ফ.তার করা হয়েছে। আর ভারতে গ্রে.ফ.তার হয়েছেন ১২ জন। এদের মধ্যে একজন ছাড়া সবাই বাংলাদেশি।

এ ১২ জনের মধ্যে ১০ জনই ভারতের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জ.বান.ব.ন্দি দিয়েছেন। বাংলাদেশে গ্রে.ফ.তা.র ব্যক্তিদের আটজন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

টিকটক বাবু চক্রের সদস্য হিসেবে নদী দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয়। টা.র্গেট করা মে.য়েদের ফাঁ.সা.তে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি নিজে যোগাযোগ করেন।

ভারতে নিপীড়নের শি..কার হয়ে পালিয়ে আসা অন্তত পাঁচ তরুণী ঢাকার হাতিরঝিল থানায় যে মাম.লা করেছেন, সেখানেও আসামির তালিকায় নদীর নাম রয়েছে। সর্বশেষ গতকাল শনিবার ভারতফেরত তিন তরুণী মামলা করেন, যাতে নদীকে এক নম্বর আসামি করা হয়েছে।

জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মো. শহীদুল্লাহ যুগান্তরকে বলেন, ভারতে নারী নি.র্যা.তন ও না.রী পা.চারের ঘটনায় উভয় দেশেই মামলা হয়েছে। জড়িতদের গ্রে.ফ.তারে ভারতীয় পুলিশ আমাদের সহযোগিতা করছে।

আমরাও এ বিষয়ে আমাদের কাছে থাকা তথ্য তাদের দিচ্ছি- যাতে চ.ক্রের হো.তাদে.র দ্রু.ত গ্রে.ফ.তার ও বি.চারের আওতায় আনা যায়। পাশাপাশি ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে নি.র্যা.ত.নের শিকার তরুণী ও এ ঘটনায় জড়িতদের দেশে আনতে পুলিশ সদর দপ্তরের এনসিবি শাখার মাধ্যমে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

তিনি আরও শহীদুল্লাহ বলেন, পা.চা.রকারীদের হাতে পড়েছেন এমন বেশ কয়েকজন এরই মধ্যে জানিয়েছেন, নদীর মাধ্যমে ভারতে চাকরির অফার পেয়েছিলেন তারা। তবে সেখানে গিয়ে তারা বুঝতে পারেন, তাদের বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। এই চক্রে নদী বড় ভূমিকা রাখছেন।

জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (এডিসি) হাফিজ আল ফারুক যুগান্তরকে বলেন, নারী পা.চারের মূল হোতাসহ পুরো চক্রটিকে আমরা আইনের আওতায় নিয়ে আসব। এ চক্রের কেউ ছাড়া পাবে না। সীমান্তবর্তী যশোর, সাতক্ষীরা এলাকায় দফায় দফায় আমরা অভিযান চালিয়েছি এবং এ প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.