Beanibazar View24
Beanibazar View24 is an Online News Portal. It brings you the latest news around the world 24 hours a day and It focuses most Beanibazar.

হিজাব পরায় মুসলিম নারীর ওপর এ কেমন আ.ক্র.মণ!


হিজাব পরিধান করায় অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় এক মু’সলিম নারীর ওপর হা’মলার ঘটনা ঘটেছে। ভুক্তভোগী নারী জানান, রাজধানী শহরের একটি বাসে তাকে শ্লী.লতাহা.নি ও আ.ক্র.মণ করা হয়।

বোলাত নামে তুরস্কবংশদ্ভূত এই মু’সলিম নারী জানান, বাসে এক নারী তার দিকে তেড়ে এসে বলেন, তোমা’র অন্ধবিশ্বা’স নিয়ে তুরস্কে চলে যাও।

সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির কাছে সাক্ষাৎকারে ভুক্তভোগী নারী বলেন, এটা আমা’র জন্য খুব পীড়াদায়ক ঘটনা। জীবনে প্রথম এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছি। এই ঘটনার কিভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে হয় তা আমা’র জানা নেই।

আক্রমণের শিকার নারী আরও জানান, তিনি ওই ব.র্ণবিদ্বে.ষমূলক আচরণে প্রথমে কর্ণপাত করেননি। কিন্তু আ.ক্র.মণ.কারী তাকে ছাড়েনি। তিনি (আক্রমণকারী) অ’পমান ও বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করেই যাচ্ছিলেন। একপর্যায়ে আ.ক্রমণ.কারী তার দিকে থু.থুও নিক্ষেপ করেন।

এই ঘটনার পর ভুক্তভোগী নারী বাস থেকে নেমে যান। কিন্তু তাতেও ক্ষান্ত হননি আক্র.মণকারী। তিনিও বাস থেকে নামেন এবং মু’সলিম নারীর হিজাব টেনে ধরেন। শক্ত করে হিজাব টানার ফলে হিজাবে সংযু’ক্ত সুচের আ’ঘাতে বোলাত আ’হত হন। শেষমেষ বোলাত ব্যাগ থেকে মোবাইল বের করে আক্র.মণকারীর ছবি তোলার চেষ্টা করলে তিনি দ্রুত চলে যান।

ভুক্তভোগী নারী এই ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও শেয়ার করেছেন। তিনি লেখেন, আমা’র মনে হয়েছে এই ধরনের ঘটনার বি’রুদ্ধে অবস্থান নেওয়া উচিত। সবাইকে এর থেকে শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত। শুধু হিজাব নয়, গায়ের রঙ অথবা নৃগোষ্ঠীগত কারণেও কারও সঙ্গে এমন আচরণ করা উচিত নয়। এ ধরনের আক্র.মণের শি.কার হলে চুপ করে থাকাও উচিত নয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ঘটনা শেয়ার করার পর বোলাতের সঙ্গে অনেকে যোগাযোগ করেন। তারা সংহতি প্রকাশ করে তাকে শুভ কা’মনা জানান।

ভুক্তভোগী নারী স্থানীয় পু’লিশের কাছে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণর জন্য অ’ভিযোগ দিয়েছেন উল্লেখ করে বলেন, আক্র.মণকারী এর আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে।

বোলাত বলেন, তিনি (আক্র.মণকারী) যদি মান.সিক অ’সুস্থ হয়ে থাকেন, তাহলে হাসপাতা’লে তার চিকিৎসা গ্রহণ করা উচিত। রাস্তায় অন্যের ওপর এ ধরণের আচরণ অগ্রহণযোগ্য। বাসে আক্রমণের সময় অন্য যাত্রীরা চুপ ছিল উল্লেখ করে এই নারী দুঃখ করে বলেন, এ ধরণের কর্মকা’ণ্ড থামাতে তাদেরও চেষ্টা করা উচিত ছিল।

You might also like

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.