আন্তর্জাতিক

কাশ্মীরী ও মুসলমানদের ওপর হামলার ঘটনায় গভীর শঙ্কায় জাতিসংঘ







ভারতজুড়ে মুসলমান ও কাশ্মীরীদের ওপর হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও শঙ্কা প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান মিশেল ব্যাচেলেট।

মুসলমান ও কাশ্মীরীদের ওপর সহিংসতা এবং হুমকিকে ন্যায্যতা দিতে পুলওয়ামা হামলার কিছু উপাদান ব্যবহার করা হচ্ছে। যাতে আমরা উদ্বিগ্ন, বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। খবর আনাদোলু অনলাইনের।



বৃহস্পতিবার কাশ্মীরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় ভারতে একটি আধাসামরিক বাহিনীর ৪৪ জওয়ান নিহত হয়েছেন।

এ হামলার দায় পাকিস্তানের ওপর চাপাচ্ছে চিরবৈরী ভারত। ইসলামাবাদ সেই দায় অস্বীকার করেছে। যদিও পাকিস্তানভিত্তিক জইশ-ই-মোহাম্মদ হামলার দায় স্বীকার করেছে।

হামলার পর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে উত্তাল হয়ে পড়ে ভারত। পরমাণুসমৃদ্ধ দুই প্রতিবেশী দেশের সাম্প্রতিক মহড়ায় আন্তর্জাতিক উদ্বেগ বাড়ছে। এ হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে দায়ীদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।



ব্যাচেলেট বলেন, হামলার ঘটনা মোকাবেলায় ভারতীয় কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপের কথা আমরা স্বীকার করছি। কিন্তু আশা করছি, সব ধরনের ক্ষয়ক্ষতি থেকে লোকজনকে সুরক্ষা দিতে সরকার পদক্ষেপ নেবে।

তিনি বলেন, পারমাণবিক অস্ত্র সমৃদ্ধ দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা আঞ্চলিক নিরাপত্তাহীনতা বাড়াবে বলে আমরা মনে করছি।

এদিকে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান মঙ্গলবার ভারত সফরে আসেন। কিন্তু ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনায় তার এ সফর যেমন ম্লান হয়ে পড়েছে, তেমনি ব্যবসায়িক মিশনও অনিশ্চয়তায় পড়েছে।



তেল বিক্রি বাড়াতে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির প্রবৃদ্ধির অর্থনীতির দেশগুলোর পেছনে ছুটছেন সৌদি যুবরাজ।

বিমানবন্দরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাকে স্বাগত জানান। তার ঐতিহ্যবাহী আলিঙ্গনে যুবরাজকে বুকে টেনে নেন। এর আগে দুদিনের পাকিস্তান সফরে ছিলেন সৌদি যুবরাজ। সেখান থেকেই ভারত সফরে আসেন তিনি।














Related Articles

Close